English ছবি ভিডিও
Bangla Font Problem?
শেষ আপডেট ৯:৩৭ অপরাহ্ণ
ঢাকা, সোমবার , ২৭শে মে, ২০১৯ ইং , ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিপাশা হায়াত

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

নব্বই এর দশকে টিভি নাটকে সু-অভিনয়ের জন্য খ্যাতি অর্জন করেন অভিনেত্রী বিপাশা হায়াত। টিভি নাটকের পাশাপাশি মঞ্চ নাটক ও চলচ্চিত্রে দারুন সফল ছিলেন এই অভিনেত্রী। বিয়ের পর অভিনয় ছেড়ে দিলেও আঁকাআঁকি, নাটকের পান্ডুলিপি লেখা এবং নাটক পরিচালনার কাজ করছেন নিয়মিত। ভবিষ্যতে শিশুশ্রম প্রতিরোধ ও অবহেলিত নারীদের পুনর্বাসনে কাজ করতে আগ্রহী প্রতিষ্ঠিত এই অভিনেত্রী।

জন্ম ও পড়াশোনা

• ১৯৭১ সালের ২৩ মার্চ ঢাকায় জন্ম গ্রহণ করেন বিপাশা হায়াত।
• বিপাশা হায়াত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চারুকলা ইনস্টিটিউট থেকে ১৯৯৮ সালে এমএফএ পাস করেন।

পারিবারিক জীবন

বিপাশা হায়াত অভিনেতা ও পরিচালক তৌকির আহমেদের স্ত্রী ।
তাদের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।
তিনি বিখ্যাত টিভি অভিনেতা আবুল হায়াতের কন্যা। তাঁর ছোট বোন নাতাশা হায়াতও একজন টিভি অভিনেত্রী ।

অভিনয় জীবন

বিপাশা হায়াত অভিনীত প্রথম নাটক ১৯৮৩ সালে বিটিভি-তে প্রচারিত হয়।
১৯৮৫ সাল থেকে মঞ্চে নিয়মিত অভিনয় শুরু করেন। মঞ্চে নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়- দলে অভিনেত্রী হিসেবে কাজ শুরু করেন। পরবর্তীতে অভিনয়ের পাশাপাশি এই দলে সেট ডিজাইনার হিসেবেও কাজ করেছেন।
মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক দুটি চলচ্চিত্র ‘আগুনের পরশমণি’ ও ‘জয়যাত্রা’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন।
বিপাশা হায়াত মঞ্চে বের্টল্ট ব্রেখট, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, সৈয়দ শামসুল হক, মামুনুর রশীদের লেখা নাটকে অভিনয় করেছেন।
চল্লিশটির মতো টেলিভিশন নাটক লিখেছেন বিপাশা হায়াত।

পুরুস্কার

১৯৯৪ সালে বিপাশা হায়াত আগুনের পরশমণি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্যে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার লাভ করেন। এতে তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে পুরুস্কার লাভ করেন।
এছাড়া বাচসাস পুরস্কার, মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার, যায়যায়দিন পুরস্কার, অন্যদিন ইমপ্রেস টেলিফিল্ম পুরস্কার, ইউনেস্কো পুরস্কার, কালচারাল রিপোটার্স পুরস্কার, ঢালিউড পুরস্কার অর্জন করেন।

বিশেষ কর্মকান্ড

২০০৯ সালে মে মাসে এসিড আক্রান্ত নারীদের সাহায্যার্থে আয়োজিত প্রদর্শনীতে তিনি নিজের আঁকা ছবি দান করেন ।

চিত্র প্রদর্শণী

গ্যালারি টোন-এ ১৯৯৬ সালে মিনিয়েচার পেইন্টিং এক্সিবিশন করেন।
১৯৯৮ সালে হোটেল সোনারগাঁয়ের ডিভাইন আর্ট গ্যালারিতে গ্রুপ এক্সিবিশন করেন।
২০০১ সালে ৯ জন তরুণ শিল্পীর সাথে জয়নুল গ্যালারিতে চিত্র প্রদর্শনী করেন বিপাশা।
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সার্ধশত জন্মবার্ষিকীতে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী ও ইতালীয়ান রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে অনুষ্ঠিত চিত্র প্রদর্শনীতে তিনি অংশ নেন।
বেঙ্গল ফউন্ডেশন ও অরণীর আয়োজনে ২০১০ ও ২০১১ সালে দুটি আর্ট ক্যাম্পে তিনি অংশ নেন।


জনপ্রিয় বিষয় সমূহ: