English ছবি ভিডিও
Bangla Font Problem?
শেষ আপডেট ১০:৩৯ অপরাহ্ণ
ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ২০শে জুন, ২০১৯ ইং , ৬ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

৩৬৫ দিনে ২০ ওয়ানডের সালতামামি

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

২০১৮ সালে বাংলাদেশ দল ২০ ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছে। জয় ১৩ ম্যাচ, পরাজয় সাতটি। ১৩ জয়ের মধ্যে পাঁচ জয় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে, চার জয় উইন্ডিজের বিপক্ষে, শ্রীলংকার বিপক্ষে দুটি, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় একটি করে। এবছরে রানের ব্যবধানে সবচেয়ে বড় জয় ত্রিদেশীয় সিরিজে লংকানদের বিপক্ষে ১৬৩ রানের জয়; উইকেটের ব্যবধানে উইন্ডিজ ও জিম্বাবুয়েকে আট উইকেটে পরাজিত করা।

২০১৮ সালে ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ১৯ ইনিংসে ৫৫ গড়ে ৭৭০ রান মুশফিকু রহিমের। ৮৫ গড়ে ১২ ইনিংসে তামিমের রান দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬৮৪। সাকিবের রান ৪৯৭, ইমরুলের ৪৩৬, রিয়াদের ৪১৯ রান। এবছর সর্বোচ্চ ৬টি অর্ধশতক তামিমের। মুশি, সাকিবের অর্ধশতক ৫টি। তামিম ও ইমরুল শতক করেছে দুটি। মুশফিক, লিটন ও সৌম্য সরকারের শতক একটি করে।

এবছর সর্বোচ্চ ৫৭টি চার মেরেছে তামিম, মুশফিক মেরেছে ৫৫টি। তৃতীয় সর্বোচ্চ ৪৭টি চার মেরেছে সাকিব। লিটন ৩৯ ও ইমরুল মেরেছে ৩৮টি চার। সবচেয়ে বেশি ১৫ ছক্কা মেরেছে মুশফিক, সৌম্য সরকারের ছয় ১৩টি, রিয়াদ মেরেছে ১২ ছয়, তামিম ৯টি।
এবছর সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত সংগ্রহ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে কায়েসের ১৪০ বলে ১৪৪; মুশি লংকানদের বিপক্ষে করেছে ১৫০ বলে ১৪৪। তৃতীয় সর্বোচ্চ উইন্ডিজের বিপক্ষে করা তামিমের করা ১৩০, এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে লিটন করেছিল ১২১ রান।

বোলারদের মধ্যে এবছর মুস্তাফিজুর রহমান ১৮ ম্যাচে সর্বোচ্চ ২৯ উইকেট নিয়েছে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২০ ম্যাচে ম্যাশের ২৬ উইকেট, ১৫ ম্যাচে রুবেলের শিকার ২৩টি। সমান ১৫ ম্যাচে সাকিবের শিকার ২১ উইকেট, মিরাজের ১৮টি।

এবছর সর্বোচ্চ ১৬৪ ওভার বল করেছে ম্যাশ, ১৪৯.৫ ওভার করেছে মুস্তাফিজুর। ১৩৪ ওভার বল করেছে মিরাজ, সাকিব ১২৫.৪ ওভার, রুবেল ১০১.২ ওভার। রিয়াদ ছাড়া বাকী সব বোলার ৫০ ওভারের কম বল করেছে; রিয়াদ করেছে ৫০.৪ ওভার।

সেরা ২১.৭২ সেরা বোলিং গড় ফিজের, রুবেলের গড় ২২.০৯, সাকিবের গড় ২৬.৮১। কম খরুচে বোলার (কমপক্ষে ৪০ ওভার) মিরাজ, তার ইকোনমি ৩.৯৯। মুস্তার ইকোনমি এবছর ছিল ৪.২০, সাকিবের ৪.৪৮।
তবে কোনো বোলার ওয়ানডে এক ইনিংসে পাঁচ উইকেট নিতে পারেনি। সেরা বোলিং ফিগার মিরাজের উইন্ডিজের বিপক্ষে করা ৪/২৯।দ্বিতীয় সেরা বোলিং ম্যাশের উইন্ডিজের বিপক্ষে ৪/৩৭। সাকিব আফগানদের বিপক্ষে ৪/৪২, মুস্তাফিজুর পাকিস্তানের বিপক্ষে ৪/৪৩।

এবছরে এখন অবধি সর্বোচ্চ ওয়ানডে রান করার তালিকায় পুরো বিশ্বে মুশফিকুর রহিমের অবস্থান দশম, তামিমের অবস্থান ১৪ তম। সেরা ব্যাটিং গড়ে তামিমের অবস্থান ষষ্ট।

২০১৮ সালে ওয়ানডে ক্রিকেটে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় পুরো বিশ্বে মুস্তাফিজের অবস্থান ষষ্ঠ, ম্যাশের অবস্থান দশম। কম খরুচে বোলারদের তালিকায় (কমপক্ষে ১০০ ওভার) মিরাজের অবস্থান চতুর্থ।


জনপ্রিয় বিষয় সমূহ: