English ছবি ভিডিও
Bangla Font Problem?
শেষ আপডেট ৬:৪৭ অপরাহ্ণ
ঢাকা, সোমবার , ২৩শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নেত্রকোণায় বয়স্ক ভাতার টাকা আত্মসাৎ, মেম্বারের ভয়ে অভিযোগ করছেনা ভুক্তভোগী সালেহা

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail
বার্তা16 অনলাইন মে ৩০, ২০২০

নেত্রকোনাঃ নেত্রকোনা সদর উপজেলার মদনপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার শাহিন আহাম্মেদ খান বয়স্ক ভাতার টাকা আত্মসাতের বিষয়টি ভয়ে অভিযোগ করছেনা ভুক্তভোগী সালেহা আক্তার। মেম্বার বয়স্ক ভাতার কার্ড করে দিয়ে এবং ওই কার্ড দিয়ে টাকা উত্তোলনের সময় জোরপূর্বক টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে জানান ভুক্তভোগী। জানা যায়, শাহিন আহাম্মেদ খান সদর উপজেলার মদনপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য।

তিনি ৮ নং ওয়ার্ডের তেতুলিয়া গ্রামের সালেহা আক্তার নামে এক মহিলাকে বয়স্ক ভাতার কার্ড করে দেন। কার্ডধারী সালেহা আক্তার সোনালী ব্যাংক মদনপুর বাজার শাখা থেকে ৬ হাজার টাকা ভাতা উত্তোলন করেন। ব্যাংক থেকে ভাতার টাকা নিয়ে বের হওয়ার পর জোর করে ইউপি সদস্য শাহিন আহাম্মেদ খান তার কাছ থেকে তিন হাজার টাকা নিয়ে নেন। এ বিষয়ে কার্ডধারী সালেহা শাহিন মেম্বারের ভয়ে সরাসরি ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজি হননি। তেতুলিয়া গ্রামের কার্ডধারী সালেহা আক্তার জানান, ‘বয়স্ক ভাতার ৬ হাজার টাকা পেয়েছিলাম। ব্যাংক থেকে ভাতার টাকা নিয়ে বের হওয়ার পর মেম্বার শাহিন বয়স্ক ভাতার কার্ড করতে নাকি টাকা খরচ হয়েছে। এই কথা বলে আমার কাছে টাকা চায় আমি প্রথমে তাকে এক হাজার টাকা দেই এই টাকায় কাজ হবে না বলে আমার কাছ থেকে জোর করে মেম্বার শাহিন ৩ হাজার টাকা নিয়ে নেয়।

এমনকি এই টাকা নেওয়ার বিষয়টা কাউকে না জানানোর জন্য সালেহা আক্তারকে ভয়-ভীতি দেখায় মেম্বার শাহিন। মেম্বার এইরকম আরও মানুষের কাছ থেকে বয়স্ক ভাতা সহ বিভিন্ন কার্ড করে দিয়ে টাকা নিয়েছে বলেও জানা যায়। ইউপি মেম্বার শাহিনের সাথে কথা বললে তার বিরুদ্ধে বয়স্ক ভাতার টাকা আত্মসাতের বিষয়টি সাংবাদিকদের সাথে অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, আমি কারও কাছ থেকে কোনও টাকা নেইনি। আমার প্রতিপক্ষ আমার নামে এই মিথ্যা বানোয়াট কথা বলছে। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদা আক্তার বলেন, এ বিষয়ে আমি এখনো কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


জনপ্রিয় বিষয় সমূহ: