English ছবি ভিডিও
Bangla Font Problem?
শেষ আপডেট ১:৪০ অপরাহ্ণ
ঢাকা, বুধবার , ২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সরকার পরিবর্তন চাইলে পরবর্তী নির্বাচন পর্যন্ত অপেক্ষা করুন

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail
বার্তা16 অনলাইন অক্টোবর ১৭, ২০২০

সরকার পরিবর্তন চাইলে পরবর্তী নির্বাচন পর্যন্ত বিএনপিকে অপেক্ষা করতে বললেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শনিবার ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড ‘ডিএমটিসিএল’ এর উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় একথা বলেন তিনি। ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।
সরকারের জনপ্রিয়তা যাচাইয়ে বিরোধী রাজনৈতিক মতের পক্ষ থেকে মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবিকে নাকচ করে দিয়ে বিষয়টিকে ‘মধ্যবর্তী টালবাহানা’ হিসেবে অভিহিত করেন, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, ‘একটি মহল মধ্যবর্তী নির্বাচনের কথা বলছে। আমরা বলতে চাই, নির্বাচনের নামে মধ্যবর্তী টালবাহানার প্রয়োজন নেই। সরকার পরিবর্তন চাইলে পরবর্তী নির্বাচন পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। সময় হলেই নির্বাচন হবে, তখন জনগণই ঠিক করবে, পরবর্তী সরকার কে হবে।’

‘ষড়যন্ত্র করে নয়, দেশের উন্নয়নের মাধ্যমেই মানুষের মন জয় করতে চায় আওয়ামী লীগ’ উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থা রয়েছে এদেশের মাটি, মানুষ আর জনগণের ওপর। ষড়যন্ত্র করে নয়, দেশের উন্নয়নের মাধ্যমেই মানুষের মন জয় করতে চায় আওয়ামী লীগ। তাই মধ্যবর্তী নির্বাচনের নামে মধ্যবর্তী কোনো টালবাহানার প্রয়োজন নেই। এমনকি প্রয়োজন নেই মধ্যবর্তী কোনো ইস্যু তৈরি করারও। সময় এলেই নির্বাচন হবে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দুর্নীতির বরপুত্র হাওয়া ভবনের নামে প্রতিষ্ঠা করেছিল এক খাওয়া ভবন। পরপর পাঁচবার দুর্নীতিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়ে দেশের মানুষকে লজ্জা আর হতাশার সাগরে ডুবিয়েছিলেন বিএনপি। এ দেশের রাজনীতিতে সততার অনন্য উদাহরণ বঙ্গবন্ধু পরিবার।’

‘দেশ যখন এগিয়ে চলে তখন একটি অপশক্তি দেশকে পিছিয়ে দেয়ার নানান ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়’ জানিয়ে কাদের বলেন, ‘এখন আবার সেইসব ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। মিথ্যাচারের মাধ্যমে সরকার ও জনপ্রশাসনে অস্থিরতা তৈরির অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়াচ্ছে। তারা সরকারকে টার্গেট করতে গিয়ে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে। বিএনপি ক্ষমতায় যেতে অন্ধকারের চোরাগলি খোঁজে। দেশের ইমেজ নষ্ট করে, তাদের সম্পর্কে জনগণ সতর্ক রয়েছে। জনগণ এখন আর এসবে বিশ্বাস করে না।’

‘দেশে গণতন্ত্র নেই’ বলে বিএনপি নেতাদের অভিযোগ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি নেতারা একই অভিযোগ বছরের পর বছর করে যাচ্ছেন। অথচ তারা নিজেরাই গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। যাদের নিজ দলে গণতন্ত্র নেই, তারা কীভাবে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবেন।’

‘গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় সরকার পরিবর্তন হবে নির্বাচনের মাধ্যমে কিন্তু তারা নির্বাচনে যেতে চায় না। গেলেও তা লোক দেখানো এবং নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য’ যোগ করেন কাদের।

‘যারা নিজেরা আপাদমস্তক অগণতান্ত্রিক রীতিনীতি চর্চায় সিদ্ধহস্ত, তাদের মুখে গণতন্ত্রের কথা শোভা পায় না। গণতান্ত্রিক রীতি এবং সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে নির্বাচন হবে। বিএনপিকে সে সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করার’ আহ্বান জানান ওয়ায়দুল কাদেল।

‘আসন্ন শীতে করোনায় সম্ভাব্য ঝুঁকি রোধে সতর্ক থাকতে এবং স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলার’ আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘করোনা সংকট মোকাবিলায় সরকারের সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়ার দক্ষতা বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছে। ঘুরে দাঁড়িয়েছে দেশের অর্থনীতি। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ এখন প্রায় চল্লিশ বিলিয়ন ডলার। বাড়ছে রপ্তানি এবং প্রবাসী আয়। বিশ্ব ক্ষুধাসূচকে ভারত-পাকিস্তানকে পেছনে ফেলে এগিয়েছে বাংলাদেশ। আর্থসামাজিক প্রায় সকল সূচকে পাকিস্তানকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যাচ্ছে অদম্য বাংলাদেশ। উন্নয়ন ও সমৃদ্ধিতে বাংলাদেশ আজ বিশ্ব অর্থনীতির বিস্ময়।’


জনপ্রিয় বিষয় সমূহ: